biotrig and india Education Enviornment Others 

বায়োট্রিগ(Biotrig) নিয়ে সংবাদমাধ্যমে আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে অনেকের কৌতূহল রয়েছে। আভ্যন্তরীন বায়ুদূষণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পদক্ষেপ বলা হচ্ছে । মাটির স্বাস্থ্য উন্নত করতে ব্যবস্থা। গ্রামীণ ভারতে ক্লিন এনার্জি তৈরি করতে এর ব্যবহার।

Read More
biotic resource Education Enviornment Others 

জৈব সম্পদ বলতে ঠিক কি বুঝি ?

ভূগোলে জৈব সম্পদ কথাটি আমরা শুনে থাকি। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় Biotic Resource । জৈব সম্পদ বলতে ঠিক কি বোঝায় তা আমাদের কাছে স্পষ্ট নয়। জৈব সম্পদ হল-জীব জগতের অন্তর্ভুক্ত যে সব উপকরণ মানুষের অভাব পূরণে সংগৃহীত হয় এবং নিয়োজিত হয়।

Read More
red sea Education Enviornment Others 

লোহিত সাগরের জল ভারত মহাসাগরের তুলনায় অধিক উষ্ণ, কেন জানেন?

লোহিত সাগরের জল ভারত মহাসাগরের তুলনায় অধিক উষ্ণ। জানেন কি এর সঠিক কারণ। এক্ষেত্রে মূল কারণটি হচ্ছে -সমুদ্রের আকৃতি ও অবস্থা। লোহিত সাগর আফ্রিকা ও আরব উপদ্বীপ দ্বারা বেষ্টিত হওয়ায় উম্মুক্ত ভারত মহাসাগরের জলের সঙ্গে এই সমুদ্রের অবাধ মিশ্রণ ঘটে না। অন্যদিকে চতুর্দিকের তপ্ত ভূখণ্ড থেকে তাপ পরিবহন ও বিকিরণের মাধ্যমে লোহিত সাগরের জল বেশি গরম হয়ে যায়। পাশাপাশি উত্তর পূর্ব আয়নবায়ু এশিয়া মহাদেশের পশ্চিমে যখন পৌঁছায় তখন সেই বায়ু উত্তপ্ত থাকে।

Read More
geography Education Enviornment Others 

ভূগোলের পরিধি ঠিক কতখানি ?

ভূগোলের পরিধি নিয়ে অনেকের দ্বিমত রয়েছে। ভূগোল বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন, ভূগোলে প্রাকৃতিক,অর্থনৈতিক,রাজনৈতিক,সামাজিক প্রভৃতি যাবতীয় বিষয় আলোচনা করা হয় বলে তার পরিধি ও লক্ষ্য ব্যাপক ও বিস্তৃত। এই পরিধিকে বিশেষ কয়েকটি ভাগে ভাগ করা হয়। (১)জ্ঞান সংগ্রহ করা। (২)স্থান,কাল ও দেশ অনুযায়ী জ্ঞান আরোহন করা যায়। (৩) প্রকৃতি ও মানুষের পারস্পরিক সম্পর্ক সম্বন্ধে জানা যায়।

Read More
mausumi forest Enviornment Others 

অরণ্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে মানুষের বিশেষ উপকারে আসে। বিশ্বের পরিবেশ রক্ষায় অরণ্যের গুরুত্ব সীমাহীন। অরণ্য মানুষ তথা সমগ্র জীবকূলের জন্য অপরিহার্য। মানুষের জীবনযাত্রা ও অর্থনীতিকে প্রভাবিত করে অরণ্য।

Read More
orographic rainfall Education Enviornment Others 

শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টি আসলে কী ?

শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টি আসলে কী, তা অনেকের অজানা। কেন হয় সেকথা অনেকেই বলতে পারেন না। ভূগোলের পরীক্ষাতে এই প্রশ্নটি কমবেশিএসে থাকে। অনেক চাকরিমুখী পরীক্ষাতে এই প্রশ্নটি আসে। শৈল কথার অর্থ হচ্ছে পর্বত। জলীয় বাষ্পপূর্ণ বায়ু পর্বতের প্রতিবাদ ঢালে বাধাপ্রাপ্ত হলে এবং পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত ঘটালে তাকে শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টি বলা হয়ে থাকে। মৌসুমী বায়ুর অঞ্চলগুলিতে এই ধরণের বৃষ্টিপাত হতে দেখা যায়। পশ্চিমঘাট পর্বতের পশ্চিম ঢালে এমন বৃষ্টিপাত হয়।

Read More
science day Education Enviornment Others Technology 

জাতীয় বিজ্ঞান দিবসে শান্তির বার্তা

আজ ২৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিজ্ঞান দিবস। দেশ জুড়ে এই দিবসটি পালিত হবে। বিজ্ঞান শব্দের অর্থ বলতে আমরা জানি বিশেষ জ্ঞান। শিক্ষা,চেতনা ও উন্নয়নে বিজ্ঞানের অবদান অসীম। তবে এই দিবসটি পালনের উদ্দেশ্য হল-মানুষের উন্নতি ও বিশ্বে শান্তি। বিজ্ঞানের ব্যাপক উন্নতির দুয়ারে এসে আমাদের জীবন হয়ে উঠেছে বিজ্ঞানমুখী। অনেক অসাধ্য সাধন করেছে বিজ্ঞান। বিজ্ঞানের অগ্রগতিতে মানব সভ্যতা এগিয়ে চলেছে।

Read More
sundarban ture Entertainment Enviornment Others Travel 

বিস্ময় জাগানো ভ্রমণক্ষেত্র-সুন্দরবন

বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অঞ্চল। উপকূলবর্তী গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্রের ব-দ্বীপ অঞ্চল। ভারত ও বাংলাদেশ জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে। এক অদ্ভুত বৈচিত্র লক্ষ্য করা যায় এখানে। জলে কুমির ও ডাঙ্গায় বাঘের মুক্তাঞ্চল বলা হয়ে থাকে। সুন্দরী-গরান-হেঁতাল সহ নানা ম্যানগ্রোভ অরণ্যের সমাহার। পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ও উত্তর চব্বিশ পরগনা জুড়ে যে জল-জঙ্গলময় অরণ্য রয়েছে সে কথাই তুলে ধরতে চাই। এখানে জলযানই একমাত্র গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দেয়। নদীর দু-পাশে অরণ্য ও জলরাশি বেষ্টিত। আশাকরি বুঝতেই পারছেন কোথাকার কথা বলছি। বিস্ময় জাগানো ভ্রমণক্ষেত্র-সুন্দরবন। কীভাবে যাবেন তা নিয়ে ভাবছেন? শিয়ালদহ স্টেশন থেকে ক্যানিং পৌঁছে সুন্দরবন যাওয়া যায়। এছাড়া গাড়ি নিয়ে বাসন্তী ব্রিজ পার হয়ে গোসাবা পৌঁছেও সুন্দরবন যাওয়া যায়। তবে সজনেখালিতে বনদফতরের অফিস থেকে অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি পেলেই সুন্দরবন ভ্রমণ করতে পারবেন। প্রথমেই জেনে নিন-সোনাখালি,ঝড়খালি,নামখানা,ধামাখালি,গদখালি,হাসনাবাদ থেকে সুন্দরবন ভ্ৰমণ শুরু করা যায়।

Read More
weather report Breaking News Enviornment Others 

উষ্ণতম নববর্ষ : আসল শীত অধরা : কুয়াশার আস্তরণ

উষ্ণতম নববর্ষ। আইএমডি সূত্রের খবর,১২৩ বছরের ইতিহাসে ২০২৩ সাল ছিল দেশের দ্বিতীয় উষ্ণতম বছর। ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম দিনে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ও পূবালী হাওয়ার প্রভাবে উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গে ভোরে বা সকালে কুয়াশা থাকছে। অন্যদিকে উত্তর-পশ্চিম ও মধ্য ভারত হয়ে দেশের পূর্ব অংশে কুয়াশার আস্তরণ। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা বলছেন,উত্তুরে হাওয়ার জোর না বাড়লে শীতের তীব্রতা বাড়বে না। পশ্চিমে আফগানিস্তান থেকে পুবে ত্রিপুরা পর্যন্ত এলাকা কুয়াশার দখলে চলে যাওয়ার কারণে আসল শীত এই মুহূর্তে অধরা। দিল্লিতে লাল সতর্কতা জারি।

Read More